jagannathpurtoday-latest news

,

সংবাদ শিরোনাম :
«» জাহিদ হাসানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ «» শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবসে সিলেটে যুবলীগের মিলাদ ও দোয়া «» দোয়ারাবাজারে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেহাল দশায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ «» ওসমানীনগরে মা ও শিশু ক্লিনিকের বিরুদ্ধে মামলা «» সাবেক ছাত্রনেতা সেলিম আহমদের পক্ষে দক্ষিণ সুরমায় গণসংযোগ «» সিলেট-৩ আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন সাবেক যুবলীগনেতা জাহিদ হাসান «» সিলেটের জাকির আহমদ জুনেদ সংক্ষিপ্ত সফরে সাগরের পাড়ে «» সিলেট-৩ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হচ্ছেন শফি চৌধুরী «» কমলগঞ্জের ইসলামপুরে নৌকার কান্ডারী হতে চান আমির আলী «» জগন্নাথপুরে সালিশী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে এলাকায় প্রতিবাদের ঝড়


কৃষকদের ঘরে ফেরাতে ব্যর্থ ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার

ডেস্ক রিপোর্ট ::  ভারতে কৃষি আইন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার সহসাই অবসান হচ্ছে না। কোন আশ্বাসেই কৃষকদের আন্দোলন থেকে ঘরে ফেরাতে পারছে না দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। বুধবার কৃষি আইন সংশোধনের প্রস্তাব আবারও ফিরিয়ে দিয়েছেন বিক্ষোভকারী কৃষকরা। সেই সঙ্গে  সংশোধন নয়, কৃষি আইন প্রত্যাহার করতে হবে বলে সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা। খবর আনন্দবাজারের।

স্থানীয় সময় বুধবার কৃষক সংগঠনগুলোর কাছে একটি খসড়া প্রস্তাব পাঠায় কেন্দ্র। তাতে বলা হয়, নতুন কৃষি আইন নিয়ে সরকার সব রকম ব্যাখ্যা দিতে প্রস্তুত। শুধু তাই নয়, কৃষকদের কথা ভেবে আইন সংশোধন করতেও রাজি তারা।

কিন্তু কেন্দ্রের দেওয়া এই প্রস্তাব সরাসরি ফিরিয়ে দেন কৃষকরা। সঙ্গে হুঁশিয়ারিও দেন, তাদের দাবি না মানলে আরও বৃহত্তর আন্দোলনের পথে নামবেন। আগামী ১৪ ডিসেম্বরের মধ্যে দেশজুড়ে আন্দোলনে নামার কথাও জানিয়েছে কৃষক সংগঠনগুলো।

সরকারের প্রস্তাব আসার আগেই বুধবার সকালে সিঙ্ঘু সীমানায় বৈঠক করে কৃষক সংগঠনগুলো। যতক্ষণ না কৃষি আইন প্রত্যাহার করা হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেন কৃষকরা। এক কৃষক নেতার কথায়, ‘আইনের সংশোধন নয়, আমরা চাই আইন প্রত্যাহার করুক সরকার।’

এর আগে গত সোমবারই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠকে বসে কৃষক সংগঠনগুলো। সেখানেও আইন সংশোধনের প্রস্তাব দেওয়া হয় কৃষকদের। কিন্তু তাতে বরফ গলেনি। কোনও সমাধান সূত্রও বেরোয়নি। এর আগেও বেশ কয়েক দফায় বৈঠক হয়েছে সরকারের সঙ্গে।

প্রথম দিকে সরকার অনড় ছিল কোনও ভাবেই কৃষকদের দাবি মানা হবে না। অন্যদিকে কৃষকরাও তাদের দাবিতে অটল থাকায় বিষয়টি আরও জটিল হয়ে ওঠে।

যত দিন গড়িয়েছে বিষয়টি নিয়ে ক্রমশ চাপ বেড়েছে সরকারের উপর। শেষমেশ নিজেদের অবস্থান থেকে কিছুটা সরে এসে আইন সংশোধনের বিষয়টিতে রাজি হয় কেন্দ্র। তবে কেন্দ্রের এই প্রস্তাবে তারা যে রাজি নয়, সেটা সাফ জানিয়ে দিয়েছে কৃষক সংগঠনগুলো।

ফলে পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে হয়ে উঠেছে। তার মধ্যে কৃষকরা আরও বড় আন্দোলনের হুমকি দেয়ায় আগামী দিনে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।