jagannathpurtoday-latest news

,

সংবাদ শিরোনাম :
«» সিলেটে মধ্যরাতে শাবি উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও «» সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ: জকিগঞ্জে কেন্দ্রে গিয়ে সিল মারা ব্যালট বাক্সে ভরেন নির্বাচন কর্মকর্তা «» গোয়াইনঘাটে মদসহ এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব «» কচুরিপানা বিক্রি হবে ২৫ টাকা কেজি! «» বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরে ইউপি নির্বাচনে নৌকা ৩, বিদ্রোহী ৩, বিএনপির ১ জন চেয়ারম্যান নির্বাচিত «» বিশ্বনাথে পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন «» জগন্নাথপুরে ৭টি ইউনিয়নে আজ নির্বাচন «» ওসমানীনগরে ছাত্রলীগ নেতার যুক্তরাজ্য যাত্রা উপলক্ষে সংবর্ধনা «» ছাতকে ১০টি ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যানসহ ১৩০জন জনপ্রতিনিধির শপথ গ্রহন

সিলেট বিভাগে ইউপি নিবাচনে ২০ উপজেলায় সহিংসতার আশঙ্কা

ডেস্ক রিপোর্ট :: চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে ভোটগ্রহণ আগামী ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এ ধাপে ২০ উপজেলায় সহিংসতার আশঙ্কা করছে মাঠ প্রশাসন। উপজেলাগুলোতে অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
এই ২০ উপজেলার মধ্যে রয়েছে সিলেট বিভাগের দুটি উপজেলা। সেগুলো হচ্ছে মৌলভীবাজার জেলার সদর ও রাজনগর।
নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্র জানিয়েছে, সম্প্রতি জেলা প্রশাসন থেকে মৌলভীবাজারের দুটিসহ ২০টি উপজেলার জন্য অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট চাওয়া হয়। এর প্রেক্ষিতে কোথাও দুজন, কোথাও তিনজন, এমনকি কোথাও পাঁচজন অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়। ইতোমধ্যে ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসককে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে বলা হয়েছে- চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনের জন্য প্রতি উপজেলায় চারজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছিলেন কমিশন। কিন্তু জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ২০টি উপজেলায় অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করার জন্য সিদ্ধান্ত দিয়েছে কমিশন।
জানা গেছে, মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগর উপজেলায় তিনজন করে মোট ছয়জন অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ হচ্ছে।
এছাড়া প্রয়োজনে অতিরিক্ত ফোর্স ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন। যার ধারাবাহিকতায় ওই ২০ উপজেলায় নিয়োজিত থাকছেন অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
গত তিন ধাপের ভোটের পরিস্থিতি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়- ভোটের দুদিন আগে থেকে দুদিন পর পর্যন্ত সহিংস ঘটনাগুলো ঘটে থাকে। তাই নির্বাচন কমিশনও ভোটের দুদিন পর পর্যন্ত বিভিন্ন বাহিনী ও ম্যাজিস্ট্রেটদের নিয়োজিত রাখছে ভোটের মাঠে। ইসির যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিতব্য ইউপি নির্বাচনের কেন্দ্রগুলোতে মোতায়েন থাকবে পুলিশ, আনসার ও অঙ্গীভূত আনসারের ২২ জনের ফোর্স।
এছাড়া পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটেলিয়ন আনসারের একটি করে টিম প্রতি ইউপিতে মোবাইল ফোর্স হিসেবে এবং প্রতি তিনটি ইউপির জন্য একটি করে স্ট্রাইকিং ফোর্স মোতায়েন থাকবে। প্রতি উপজেলায় র‌্যাবের থাকবে দুটি মোবাইল টিম ও একটি স্ট্রাইকিং টিম, প্রতি উপজেলায় বিজিবির দুই প্লাটুন সদস্য থাকবে মোবাইল টিম হিসেবে। আর এক প্লাটুন নিয়োজিত থাকবে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে। উল্লেখ্য, চতুর্থধাপে সিলেট বিভাগের ৮২টি ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৬ ডিসেম্বর। সেগুলো হচ্ছে- সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘা, গোলাপগঞ্জ, ফুলবাড়ী, লক্ষীপাশা, বুধবারিবাজার, ঢাকা দক্ষিণ, লক্ষণাবন্দ, ভাদেশ্বর, পশ্চিম আমুড়া, উত্তর বাদেপাশা, শরীফগঞ্জ ইউনিয়ন ও বিয়ানীবাজার উপজেলার আলীনগর, চারখাই, দুবাগ, শেওলা, কুড়ারবাজার, মাতিউরা, তিলপাড়া, মুল্লাপুর, মুড়িয়া, লাওতা ইউনিয়ন। মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার ফতেহপুর, উত্তরভাগ, মুনশীবাজার, পাঁচগাঁও, রাজনগর, টেংরা, কামারচাক, মনসুরনগর ইউনিয়ন ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলার খলিলপুর, মনুমুখ, কামালপুর, আপারকাবাগলা, আখাইলকুড়া, একাটুনা, চাদনীঘাঁট, কনকপুর, আমতৈল, নাসিরাবাদ, মুস্তফাপুর, গিয়াসনগর ইউনিয়ন। হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার লাখাই, মুড়াকুড়ি, মুড়িয়াউখ, বামৈ, করাব, বুল্লা (ইভিএম) ইউনিয়ন ও বানিয়াচং উপজেলার বানিয়াচং উ.পূ, বানিয়াচং উ.প, বানিয়াচং দ.পূ, দৌলতপুর, খাগাপাশা, বড়ইউড়ি, খাগাউড়া, পুকড়া, সুবিদপুর, মকরমপুর, সুজাতপুর, মন্দরি, মুরাদপুর, পৈলারকন্দি ইউনিয়ন। সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া, চিলাউড়া হলদিপুর, রাণীগঞ্জ, সৈয়দপুর শাহারপাড়া, আশারকান্দি, পাইলগাঁও, পাটলি ইউনিয়ন ও দিরাই উপজেলার রফিনগর, ভাটিপাড়া, রাজানগর, চরনারচর, দিরাই সরমঙ্গল, করিমপুর, জগদল, তাড়ল, কুলঞ্জ ইউনিয়ন ও বিশ্বম্বরপুর উপজেলার ফতেহপুর, বাধাঘাট দক্ষিণ, পলাশ, ধনপুর ও সলুকাবাদ ইউনিয়ন।