jagannathpurtoday-latest news

,

সংবাদ শিরোনাম :

দুনিয়া কাঁপানো মহামারী : শাহ মোঃ সফিনূর

১৭৫৭ সালের ২৩ জুন বাংলা বিহার ও উরিষ্যার স্বাধীন নবাব সিরাজ-উ-দৌলা ইংরেজদের সাথে দেশ রক্ষার যুদ্ধে লিপ্ত হন। কিন্তু ক্ষমতার লোভে এদেশীয় মীর জাফর, রাজবল্লভ, রায় দুর্লভ, উর্মি চাঁদ, জগৎশেঠেরা প্রতারণা করে সিরাজের পরাজয় তরান্বিত করে। আর নিষ্ঠুর ইংরেজদের নির্দেশে এবং মীরণের আদেশে মোহম্মদী বেগ, বাংলার মহানায়ক সিরাজকে শহীদ করে ২ জুলাই ১৭৫৭ এবং ভারতবর্ষকে ব্রিটিশদের অধীনে নিয়ে যায় । ১৮২০ সালে এই সময় ভয়ঙ্কর রূপে আবির্ভূত হতে থাকে কলেরার মতো মহামারী ভারত বর্ষ তথা বাংলার তো কোন ডাক্তারি ব্যবস্থার কোন সুযোগ সুবিধাই ছিলনা গ্রামগঞ্জে যে বিষয়টা সেই সময় ইতিহাসবিদরা অথবা ইতিহাস ঘেঁটে যে প্রমানগুলো উঠে আসছে সেটি হল গ্রামগঞ্জের দুইটি বাড়ি এক বাড়ি থেকে অন্য বাড়ির দূরত্ব ছিল অনেক দূরে , শিক্ষা ব্যবস্থা ছিল একভারে শোচনীয় শিক্ষাব্যবস্থা ছিল না বললেই চলে শিক্ষা শুধুমাত্র ছিল দারুল উলুম দেওবন্দ অনেকে ছেলে কে নিজের জমি বিক্রি করে সেই সময় যারা উৎসাহিত হতেন শিক্ষিত করার জন্য দারুল উলুম দেওবন্দ পাঠিয়ে দিতেন । সেই সময়ে সাধারণ জনগণ কলেরা একটা ব্যাকটিরিয়াজনিত সংক্রমণ জানার কথা ছিল না, কলেরা যে কি ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছিল মৃত্যুর মিছিল শুরু এটি ১৭২৯ সালের বৈশাখ মাসে মুঘল রাজধানী দিল্লির দৃশ্য তার বিবরণ দিয়েছেন সমকালীন ইতিহাসবিদ সৈয়দ গোলাম হোসেন তাবতাবাই বলেন হাট-বাজার ছিল লোকে লোকারণ্য কিন্তু কলেরার ভয়ে মানুষ দিল্লির রাজধানী হাট-বাজারে জনশূন্য পরিণত হয়েছিল। চলবে। লেখক: আমেরিকা-মিশিগান।